ই-পেপার

মার্কিন ড্রোন হামলায় একই পরিবারের ৬ শিশুসহ নিহত ৯

বিএসএল নিউজ ডেস্ক | আপডেট: আগস্ট ৩০, ২০২১

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি আবাসিক এলাকায় একটি গাড়ি লক্ষ্য করে মার্কিন ড্রোন হামলায় একই পরিবারের ৯ জন নিহত হয়েছে। তাদের মধ্যে ছয়জনই শিশু বলে জানিয়েছে নিহত ব্যক্তিদের একজন আত্মীয়। মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড রোববার জানিয়েছে, বিমানবন্দরের জন্য ‘আসন্ন’ হুমকি সন্দেহভাজন একজন আইসিস-কে আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী লক্ষ্য করে ওই প্রতিরক্ষামূলক বিমান হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। খবর সিএনএনের।

নিহতদের এক ভাই বলেন, হামলায় মৃত্যু হওয়াদের মধ্যে ২ বছর বয়সী মেয়ে শিশুও রয়েছে। তিনি বলেন, তারা ‘একটি সাধারণ পরিবার’ ছিল। আমরা আইসিস বা দায়েশ নই এবং এটি একটি পারিবারিক বাসা, যেখানে পরিবার নিয়ে বাস করতেন আমার ভাই।

প্রতিবেশী এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কাবুলে ওই ড্রোন হামলায় বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছে। তাদের মধ্যে শিশু থাকার কথাও জানান তারা। একজন প্রতিবেশী সিএনএন’কে বলেন, সব প্রতিবেশি সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে এবং পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে এবং আমি পাঁচ বা ছয়জনের মৃতদেহ দেখেছি।

ওই ব্যক্তি আরও বলেন, ওই পরিবারের প্রধান এবং আরেকজন তরুণ এবং দুজন শিশু। তারা সবাই মারা গিয়েছিল। তারা ছিন্নভিন্ন হয়ে গিয়েছিল। দুজন আহত ব্যক্তিকেও দেখেছি আমরা। পরে রোববার মার্কিন সেনাবাহিনী জানায়, ওই হামলায় বেসামরিক ব্যক্তি হতাহত হয়েছে।

মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন বিল আরবান এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, আমরা জানি ওই গাড়ি ধ্বংস করার পর ব্যাপক এবং পরবর্তীতে শক্তিশালী বিস্ফোরণ ঘটেছিল, যার অর্থ হচ্ছে, ওই গাড়ির ভেতর বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ছিল, যা আরও বেশি হতাহতের কারণ হতে পারতো। তবে কি হয়েছে তা স্পষ্ট নয় এবং আমরা আরও তদন্ত করছি। নিরীহ মানুষের যেকোনো সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতিতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত হবো বলেও জানান তিনি।

এদিকে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একাধিক রকেট হামলার ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শী এবং নিরাপত্তা সূত্রগুলোর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, সোমবার সকালের ব্যস্ততা শুরু হওয়ার আগে কাবুলের আকাশে রকেটের শব্দ শোনা যায়। মার্কিন একজন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, বিমানবন্দর লক্ষ্য করে অন্তত পাঁচটি রকেট ছোঁড়া হয়।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন