ই-পেপার

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্বামী-স্ত্রী ও শ্যালিকার রক্তাক্ত মরদেহ

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: এপ্রিল ২৩, ২০২১

কক্সবাজারের উখিয়া আশ্রয় শিবিরে স্বামী, স্ত্রী ও শ্যালিকার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উখিয়ার বালুর মাঠ ক্যাম্প থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন ১৪ এপিবিএন এর অধিনায়ক মো. নাঈমুল হক।

নিহতরা হলেন- উখিয়ার ২-ইস্ট নম্বর কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা আলী হোসেনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৩৩) এবং তার স্ত্রী মরিয়ম খাতুন (২৬) ও শ্যালিকা হালিমা খাতুন (২০)।

স্থানীয়দের বরাতে এসপি নাঈমুল ইসলাম বলেন, উখিয়ার ২-ইস্ট নম্বর কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা নুরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী মরিয়ম খাতুনের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। এ নিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায়ও তাদের মধ্যে তর্কাতর্কির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে তারা পরস্পরের উপর হামলে পড়ে। এতে এ খুনের ঘটনা ঘটেছে।

এপিবিএন এর এ অধিনায়ক বলেন, সন্ধ্যায় স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে এপিবিএন এর সদস্যরা বাড়ী থেকে ৩ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। এদের মধ্যে মরিয়ম খাতুনকে গলা কাটা এবং অপর দুইজনকে গলাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন থাকা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জেরে এ খুনের ঘটনা ঘটেছে।

তবে কি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক বিরোধ চলছিল তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি বলে জানান নাঈমুল।

এসপি জানান, নিহতদের মরদেহ উখিয়া থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

উখিয়া থানার ওসি মো. সঞ্জুর মোর্শেদ জানান, নিহতদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন