কঠিন শর্তে শ্রীলংকা যেতে চায় না বাংলাদেশ

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২৩:২৩

বিএসএল নিউজ ডেস্ক

বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের শ্রীলংকা সফরের ব্যাপারে নেতিবাচক খবর দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এতে করে টাইগারদের শ্রীলংকা সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড কোয়ারেন্টিন শর্ত, খেলোয়াড় কম নেওয়ার শর্ত, সঙ্গে নিরাপত্তা দল নেওয়াসহ নানান শর্ত দিচ্ছে। এত শর্ত মেনে শ্রীলংকা সফর সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। উল্টো এসএলসিকে দুটি প্রস্তাব দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিসিবি কার্যালয়ে বিসিবি সভাপতি সাংবাদিকদের এমনটাই বলেন। বাংলাদেশ দল শ্রীলংকা সফর না করলে এই সময়ে দেশে ঘরোয়া ক্রিকেট চালু করা হবে বলেও জানিয়েছেন বোর্ড প্রধান।

আসন্ন সফরকে ঘিরে লংকান বোর্ডকে দুটি প্রস্তাব দেওয়ার কথা ভাবছে বিসিবি। প্রথমটি হচ্ছে, বিসিবি দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিন মেনে নেবে। কিন্তু নিজেদের মাঝে অনুশীলনের সুবিধা দিতে হবে। দ্বিতীয়টি হচ্ছে, ৩০ জনের বদলে মোট ৪৩ জনের সফরের অনুমতি দিতে হবে। এই দুটি প্রস্তাব মানলে সিরিজ মাঠে গড়াবে।

ইংল্যান্ডে করোনার নীতিমালায় কত কড়াকড়ি। কিন্তু তারপরও কিন্তু পাকিস্তান ও অস্ট্র্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয়নি। টাইগারদের ক্ষেত্রে যদি লংকানদের বেঁধে দেওয়া সব শর্ত মানতে হয় তবে পুরো দলই অনেক বেকায়দায় পড়বে। আমাদের দেওয়া দুটি শর্ত মানলেই কেবল এই সিরিজের ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে বিসিবি মনে করে।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, এ রকম শর্ত মেনে আমরা সেখানে সিরিজ খেলতে যেতে পারব না। আমরা শ্রীলংকা বোর্ডের কাছে চিঠি পাঠিয়েছি। আমাদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছি যে, এমন শর্ত মেনে আমরা সিরিজ খেলতে যেতে পারব না। দেখা যাক চিঠির উত্তরে তারা কী জানায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘সেখানে আমাদের দুইটি টিম (জাতীয় দল ও এইচপি দল) নিয়ে যেতে হবে। মেডিকেল টিম আছে, সিকিউরিটি টিম আছে। ৬০-৭০ জনের একটা টিম নিয়ে তো সেখানে তাদের শর্ত মেনে সিরিজ খেলতে যাওয়া সম্ভব না।’

বিসিবি প্রধান জানান, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অনেক কম থাকায় শ্রীলংকাকে বেছে নিয়েছিলেন তারা, ‘শেষ যখন আপনাদের সঙ্গে কথা বলেছিলাম, বলেছিলাম ওই সময়ে শ্রীলংকা সফর নিরাপদ। এটা ভাবার পেছনে কারণ ছিল ওদের করোনা রোগীর সংখ্যা কম ছিল। ওদের ওখানে ওরা ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু করে দিয়েছে। আপনি যদি দেখেন অন্যান্য দেশে যখন খেলা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ওদের ওখানে খেলা চালু ছিল।’

‘যেহেতু আমাদের এখানে অনুশীলন, খেলাধুলা বন্ধ করে রেখেছি। এখানে অনুশীলন করা কঠিন। সেজন্য আমরা চিন্তা করলাম, খেলোয়াড় কোচ সবার কথা চিন্তা করে ওদের ওখানে গিয়ে অনুশীলন করা নিরাপদ হবে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা সিরিজটির জন্য রাজি হয়েছিলাম এবং আমরা বলেছিলাম ওখানে যাব এবং বিশাল বাহিনী নিয়ে যাবো।’

শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ডের দেওয়া শর্তগুলো হচ্ছে, বাংলাদেশ দলকে অবশ্যই দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এছাড়া বিসিবি ৬৫ জন ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফ নিয়ে সফরে যেতে চাইলেও ৩০ জনের বেশি সেখানে যেতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে। এসবের পাশাপাশি করোনা টেস্ট অংশ নেওয়া বাধ্যতামূলক। আর বিসিবি বলছে, ১৪ দিন নয়, ৭ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকবে টাইগার ক্রিকেটাররা।

এর আগে এক চিঠিতে এসএলসি জানিয়েছিল, টাইগারদের মাত্র এক সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। কিন্তু পরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নীতিমালার কারণেই তারা সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে বলে জানিয়েছেন শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডের চিফ অপারেটিং অফিসার অ্যাশলি ডি সিলভা।

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ৩টি টেস্ট ম্যাচ খেলতে শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। প্রস্তাবিত সূচি অনুসারে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহেই শ্রীলংকার উদ্দেশ্যে বিমানে ওঠার কথা। কিন্তু তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ নিয়ে এখনো আনুষ্ঠানিক সূচি প্রকাশ করেনি শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড।

এদিকে জাতীয় দলের প্রস্তুতির জন্য একই সময়ে এইচপি দলের সফরও নির্ধারণ করেছিল বিসিবি। তবে শ্রীলংকা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের করোনা সংক্রান্ত নীতিমালার কারণে এইচপি দলের সফর নিয়ে শঙ্কা আগেই বেড়েছে।

জাতীয় দল ও এইচপি দলের ক্রিকেটারসহ বেশ বড় সংখ্যার একটা দল একসঙ্গে শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার কথা। সেটা নিয়েই লংকান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আপত্তি তুলেছে। তারওপর ১৪ দিনের কোরারেন্টিন ও অনুশীলন নিয়ে বেঁকে বসেছে লংকান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এসব কারণেই অনিশ্চিত হয়ে যায় এইচপি দলের সফর।

বিসিবি সভাপতি দেশের মাঠে খেলা ফেরানোর বিষয়ে বলেন, ‘আমরা দেশের মধ্যে ক্রিকেট চালু করব বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেটা হতে পারে ডিপিএল বা অন্য কিছু। তবে ক্রিকেট ফেরাব। যেহেতু কোচরাও এসে গেছেন। খেলোয়াড়রাও অনেকদিন খেলার বাইরে। কোন প্রক্রিয়ায় ক্রিকেট ফেরাব সেটা পরে জানাব।