ডিএসসিসি’র ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৩৫

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও এডিস মশার প্রজননস্থল শনাক্তকরণে ভ্রাম্যমান আদালতগুলোর অভিযান চলমান রয়েছে।

২৫তম দিনে নিয়মিত উচ্ছেদ কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় আজ মঙ্গলবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন অঞ্চল ০৭ এর গ্রীন মডেল টাউন গেইট সংলগ্ন দক্ষিণ মুগদা এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় রাস্তা সম্প্রসারণের কাজে বাধা সৃষ্টি করে তৈরি করা ১টি অবৈধ পাকা স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। ডিএসসিসি’র সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ উচ্ছেদ অভিযানের নেতৃত্ব দেন।

উচ্ছেদ অভিযান সম্পর্কে ডিএসসিসি’র সম্পত্তি কর্মকর্তা বলেন মনিরুজ্জামান বলেন, গত বুধবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস দক্ষিণ মুগদা এলাকা পরিদর্শন করে সেই এলাকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দিয়েছিলেন। মেয়র এর নির্দেশনায় আজ সকাল থেকে উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ অভিযান প্রসঙ্গে বলেন, ডিএসসিসি’র মেয়রের নির্দেশনা ছিলো, এক সপ্তাহের মধ্যে যেন এই এলাকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। সেই নির্দেশনার আলোকে আজ সকাল ১১টা থেকে আমরা দক্ষিণ মুগদায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু করি (এখনো চলমান রয়েছে)। এই অভিযানের মাধ্যমে রাস্তা সম্প্রসারণ কাজে বাধা সৃষ্টিকারী একটি বড় পাকা স্থাপনা আমরা উচ্ছেদ করেছি এবং ৯ শতাংশ জমি আমরা দখলমুক্ত করতে পেরেছি।

এদিকে মশার প্রজননস্থল শনাক্তকরণে আজ ২১তম দিনে কর্পোরেশনের ১টি ভ্রাম্যমাণ আদালত অঞ্চল- ১ এর ১৫ ও ১৭ নং ওয়ার্ডে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছে। কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ ফয়সালের নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত এ সময় ৩২টি স্থাপনা পরিদর্শন করে ৩টি স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় ৩টি মামলা দায়ের ও নগদ ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন।

আগামী বুধবার যথারীতি ভ্রাম্যমাণ আদালতগুলো অভিযান পরিচালনা করবে।