গোপনে ফেসবুকে ঘোষনা হলো বিসিসি’র বাজেট

নিজস্ব প্রতিবেদক শুক্রবার, জুলাই ৩১, ২০২০ ১১:৪৩ অপরাহ্ণ

এই প্রথম কোন প্রকার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই ঘোষনা করা হয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ২০২০-২১ অর্থ বছরের বজেট।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) রাতে সিটি কর্পোরেশনের ভেরিফাইড ফসবুক পেজের মধ্যমে ৫শত ২৭ কোটি  ৬২ লক্ষ ৬৪ হাজার ৩৪৫ টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষনা করা হয়। যা গত অর্থ বছরের তুলনায় ১২০ কোটি ৪৮ লাখ ৩ হাজার ৯২ টাকা কম।

শুক্রবারর (৩১ জুলাই) রাতে বাজেট ঘোষনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের পরিসংখ্যানবিদ স্বপন কুমার দাস। তবে কি কারণে বাজেট ঘোষনার ক্ষেত্রে ফেসবুক বেছে নেয়া হলো সে সম্পর্কে অবগত নন তিনি।

ফেসবুক পেজ পোষ্ট করা সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ স্বাক্ষরিত ওই বাজেট কপিতে উল্লেখ করা হয়েছে রাস্তা, ড্রেন ও অন্যান্য ভৌত অবকাঠামো নির্মান/উন্নয়ন এবং বিভিন্ন স্থানে সৌন্দর্য্যবর্ধন কাজের জন্য ১৭০ কোটি ৫ লক্ষ টাকা, রাস্তা, ড্রেন ও অন্যান্য অবকাঠামো পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষনের জন্য ২০ কোটি ৫০ লাখ টাকা, ব্রীজ কালভাটের জন্য ৫ কোটি টাকা, শহর রক্ষা বাধের জন্য ১০ কোটি টাকা, খাল সংরক্ষন খাতে ৫০ কোটি টাকা এবং পরিবেশ উন্নয়ণ ও অন্যান্য খাতে ১ কোটি ৩০ লক্ষ টাকা বাজেট করা হয়েছে।

এছাড়াও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, মশক নিয়ন্ত্রন কার্যক্রম, কল্যানমূলক ব্যয়, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান অনুদান, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সমাজকল্যান মূলক কার্যক্রম, আইসিটি খাত, প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরিচর্যা এবং পানি সরবরাহ ও বিদ্যুৎ বিভাগে বরাদ্দ বৃদ্ধি করা হয়েছে এবারের বাজেটে।

এর আগে নির্বাচিত হওয়ার পরে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের জন্য ৫শত ৪৮ কোটি ১০ লাখ ৬৭ হাজার ৪৩৭ টাকা বাজেট ঘোষনা করেছিলেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। সেটি ছিলো তার প্রথম বাজেট ঘোষনা।

ওই বাজেটকে সচ্ছ এবং জবাবদিহীতামূলক করতে জনগণের সামনে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষনা করা হয়েছিল। তবে এবারে তেমন কোন প্রস্তুতি বা পূর্ব ঘোষনা ছাড়াই ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বাজেট ঘোষনা করা হয়। তাছাড়া এবারের ঘোষিত বাজেট গতবছরের তুলনায় ১২০ কোটি ৪৮ লাখ ৩ হাজার ৯২ টাকা কম।

বাজেট পত্রে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, ‘২০২০-২১ অর্থবছরের ঘোষিত বাজেটে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হিসেবে নতুন নগর ভবন নির্মানসহ অনেক কিছু উল্লেখ করা হয়। যা পুর্বের বাজেটেও ছিল।

তবে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৫৪৮ কোটি টাকার বাজেট ঘোষিত হলেও কাঙ্খিত উন্নয়ন পায়নি নগরবাসী। এমনটাই অভিযোগ অনেকের।

নগর ভবন সূত্রে জানা গেছে, ‘বর্তমান পরিষদের গত দুই বছরে প্রাপ্তি ও প্রত্যাশার উন্নয়ন ঘটেনি। হয়নি দৃশ্যমান তেমন কোন উন্নয়ন। এ সময়ের মধ্যে শুধুমাত্র সাড়ে ৬ হাজার মিটার সড়ক নির্মান, ২ হাজার মিটার সড়ক সংস্কার, ১৫০ মিটার ফুটপাত নির্মান করা হয়েছে।

এর পাশাপাশি রোড মার্কিং, জেব্রা কোসিং ও রোড সাইন ১০টি, ১২ হাজার রোড লাইট মেরামত, ২ কিলোমিটার ড্রেন কাম ফুটপাত নির্মান করা হয়েছে। যার পুরোটাই বিসিসি’র নিজস্ব আয় থেকে করা হয়েছে।

বর্তমান পরিষদেন মেয়াদ দুই বছর হলেও বরিশাল সিটির উন্নয় নিয়ে হতাশ নগরবাসী। বরিশালের প্রধান সড়কসহ অধিকাংশ সড়কই এখন চলাচলের অনুপযোগী। তার মধ্যে গোপনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাজেট ঘোষিত হওয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে নগরবাসীর মাঝে।

এই বিষয়ে বক্তব্য জানতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহকে একাধীকবার ফোন করলেও নম্বর ব্যস্ত পাওয়া যায়। যে কারণে বক্তব্য জানা যায়নি।