বলিউড থেকে হুমকি ফোন পেতেন সুশান্ত!

বিনোদন ডেস্ক বুধবার, জুন ১৭, ২০২০ ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

পেশাগত কোনো শত্রুতা শেষ করে দেয়নি তো ৩৪ বছর বয়সী সুশান্ত সিং রাজপুতের তরতাজা প্রাণ? রবিবার গলায় ফাঁস লাগিয়ে অভিনেতার আত্মহত্যার পর তার একাধিক প্রেমের সম্পর্কের মতো এই প্রশ্নটিও উঠে আসছে বারবার। সোমবার রাতে ছেলের অন্তিম সংস্কারের পরে মঙ্গলবার মহারাষ্ট্র প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেন সুশান্তের বাবা কেকে সিং। তিনি জানান, ‘ছেলেকে প্রায়ই মনমরা ও বিষণ্ন দেখতাম। হতাশায় ভুগত, জানতামই না!’

শুধু সুশান্তের বাবা নন, পরিবারের কেউই জানতেন না অভিনেতা ক্রমশই অবসাদে ডুবে যাচ্ছিলেন। চিকিৎসা নিয়ে ওষুধও খাচ্ছিলেন। ফলে, তাদের সন্দেহের তালিকায় আপাতত কেউই নেই। তবে সুশান্তের তুতো ভাই এবং বিজেপি বিধায়ক নীরজ বাবলু এক বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, সুশান্ত নাকি বলিউডের অন্দরমহল থেকে প্রায়ই হুমকি ফোন পাচ্ছিলেন। সেদিকে নজর দিলে অনেক রাঘব বোয়ালের নাম উঠে আসবে বলে তার দাবি। যাদের কলকাঠির জোরে ক্রমশ কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলেন সুশান্ত।

এই অভিযোগের পেছনে নীরজের যুক্তি, গত ১০ বছরে তরতরিয়ে উন্নতি করেছেন সুশান্ত। তার এই উত্থান বলিউডের অনেকেই সহ্য করতে পারছিলেন না। তাই তাকে টেনে নামাতে নানা ভাবে চাপ দেয়া হচ্ছিল। যার জেরে সুশান্ত এই আত্মহননের পথ বেছে নেন। নীরজ রীতিমতো হুমকি দিয়ে বলেছেন, সময় মতো তিনি সবার কীর্তি ফাঁস করবেন। আপাতত তিনি সুবিচার চেয়ে আবেদন করেছেন মহারাষ্ট্র প্রশাসনের কাছে।

এর আগে সোমবার সুশান্তের মামা দাবি করেন, এটা আত্মহত্যা নয়, সুশান্তকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি এই কেসের তদন্ত ভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয়ার জন্য টুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে আর্জি জানান। তিনি এও দাবি করেন, ভালো করে নাড়াচাড়া করলেই বেরিয়ে আসবে অনেক অজানা তথ্য। সুশান্তের এক ভগ্নিপতি হরিয়ানা প্রশাসনের কর্তাব্যক্তি। তারও সন্দেহ রয়েছে এই মৃত্যু নিয়ে।

এদিকে পরিবারের পাশাপাশি মুম্বাই পুলিশ লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে সুশান্তের একদম কাছের বন্ধু মহেশ শেট্টিকে। তার থেকেই প্রথম সবাই জানতে পারেন, অবসাদে ভুগছিলেন অভিনেতা। নিয়মিত ওষুধ নিতে হত। শেষের কিছুদিন সেই ওষুধও বন্ধ করে দেন। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে সুশান্তের ক্রিয়েটিভ ম্যানেজার সিদ্ধার্থ পিঠানিকেও। অভিনেতার আর্থিক অবস্থা, কাজকর্ম, বলিউডে তার অবস্থান সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তাকে।