সৌদির ‘আজওয়া’ ও ‘আমবার’ জাতের খেজুর চাষে সফল উজিরপুরের আল-মামুন

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া বৃহস্পতিবার, জুন ১১, ২০২০ ৬:০১ অপরাহ্ণ

আল মামুন হাওলাদার ১৭বছর সৌদি আরবে প্রবাস জীবন কাটিয়ে ২০১৪ সালে দেশে ফেরেন। তিনি দীর্ঘ বছর সৌদি আরবে থাকাকালীন নিজ দেশে সৌদির বিশেষ জাতের খেজুর চাষের ইচ্ছে পোষন ও স্বপ্নের জাল বুনেন। সেই ও স্বপ্ন ও ইচ্ছেকে বাস্তবরূপ দিতে সেখান থেকে খেজুর গাছ চাষ শিখে এসে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের পূর্ব ধামসর গ্রামে খেজুর গাছের চাষ শুরু করেন।

প্রায় অর্ধ যুগ পরে তার ঐকান্তিক চেষ্টায় খেজুর ফলণের মধ্য দিয়ে স্বপ্ন সফল হয়। চলতি বছর মে মাসের শুরুর দিকে তার বাগানের একটি গাছে মদিনার
আমবার জাতের খেজুরের প্রচুর ফলণ হয়। এর মধ্য দিয়ে প্রথম বারের মত সৌদি খেজুর চাষে সফলতা অর্জিত হয়ে তার দীর্ঘ বছরের স্বপ্নের বাস্তবরূপ নেয়।

জানা গেছে বর্তমানে তার বাগানে প্রায় দেড়শতাধিক ‘আজওয়া’ ও অর্ধশতাধিক ‘আমবার’ জাতের খেজুর গাছ ও চারা রয়েছে। সৌদি আরবের মদিনা শহরের বিশেষ জাতের এ খেজুরের মূল্য প্রতি কেজি ১৫শ থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে এবং প্রতিটি চারাগাছ দুই থেকে দশ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয় বলে
তিনি জানান।

এদিকে বরিশালে এই প্রথম কেউ সৌদি খেজুরের বাগান গড়ে তুলে সফলতা পেয়েছেন বলে জানা গেছে। অপরদিকে সরকারি পৃষ্টপোষকতা পেলে এ বাগানটি সৌদি খেজুর চাষের অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হতে পারে। এ খেজুর বাগান থেকে দেশে হাজারো বাগানের সৃষ্টি হতে পারে।ফলে দেশের মানুষের খেজুরের চাহিদা পূরণে সৌদি আরব থেকে খেজুর আমদানি এক সময় প্রয়োজন নাও হতে পারে। বরং দেশের মানুষের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও খেজুর রপ্তানি সম্ভব হয়ে উঠতে পারে।

এ প্রসঙ্গে সফল খেজুর চাষি আল মামুন বলেন,অত্যন্ত সুস্বাদু ও পুষ্টিকর পবিত্র মদিনার এ নেয়ামতপূর্ন ফলকে দেশের মানুষের কাছে সহজলভ্য করতে বাগানের পরিধি বৃদ্ধি করা সহ তার নানা স্বপ্ন রয়েছে।