বরিশালে করোনা আতঙ্কেও থেমে নেই মাদক ব্যবসা : ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক বুধবার, এপ্রিল ১, ২০২০ ২:৩২ অপরাহ্ণ

বরিশালে করোনা আতঙ্কের মধ্যেও থেমে নেই মাদক ব্যবসা। বরং করোনা আতঙ্কে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ভিন্ন কার্যক্রমে ব্যস্ততাকে পুঁজি করে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মহল বিশেষ। এরা মাদক করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারের নামে নিজেদের মুখ ঢেকে মাদক দ্রব্য পৌঁছে দিচ্চেন ক্রেতাদের হাতে।

তবে এসব করেও রেহাই পাচ্ছে না মাদক ব্যবসায়ীরা। ধরা পড়ে যাচ্ছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর হাতে। বিশেষ করে বরিশাল মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কতিপয় চৌকস কর্মকর্তার তৎপরতায় ভেস্তে যাচ্ছে মাদক কারবারিদের সকল পরিকল্পনা।

মাদক ব্যবসায়ীদের প্রতিটি পদক্ষেপেই বাধা দিয়ে তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসছে। এমনই দুই মাদক কারবারিকে আটক করেছে বরিশাল মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। এদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছ ৪০ বোতল ফেন্সিডিল ও ৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট।

গতকাল মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) রাত সোয়া ১১টার দিকে নগরীর সদর রোডস্থ পোশাত কাজার মার্কেটের চতুর্থ তলায় হোটেল সামস্ ও কাশিপুর বাজার এলাকা থেকে তাদের আটক এবং মাদক উদ্ধার করা হয়।

ডিবি পুলিশ জানিয়েছে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা শাখার এসআই দেলোয়ার হোসেন-পিপিএম এর নেতৃত্বে হোটেল সামস্-এ অভিযান করা হয়।

এসময় সেখানকার ৪০৭ নম্বর কক্ষ থেকে ৪০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে মাদক ব্যবসায়ী মো. মাসুদ রানা বেপারীকে আটক করা হয়।

পরবর্তীতে এয়ারপোর্ট থানাধীন ২৯নং ওয়ার্ডস্থ কাশিপুর বাজার জোড় পুকুরপাড়ে অভিযান করেন এসআই দেলোয়ার ও তার টিম।

এসময় সেখানকার হাওলাদার ম্যানশনের ২য় তলার ভাড়াটিয়া মোঃ শাহ আলমকে ওই ভবনের ছাদ থেকে আটক করা হয়। পরে তার কাছ থেকে ৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ।

এ দুটি ঘটনায় কোতয়ালী মডেল ও এয়ারপোর্ট থানায় ডিবি পুলিশ বাদী হয়ে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি মঙ্গলবার তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠানো হয়।

এদিকে শুধুমাত্র এরা দু’জনই নয়, মাত্র কদিন আগেই এসআই দেলোয়ার এর নেতৃত্বাধীন টিম বরিশাল নগরীর চাঁদমারী মাদ্রাসা রোডে পুলিশ অফিসার্স মেস সংলগ্ন বাড়িতে অভিযান চালায়।

এসময় সেখান থেকে ২০১ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক করা হয় দুই মাদক কারাবারিকে। ওই অভিযানে হামলার ঘটনাও ঘটে ডিবি পুলিশের উপরে। এতে দু’জন ডিবি পুলিশের সদস্য আহত হয়। একই রাতে নগরীর নবগ্রাম রোড থেকে ৬০ পিচ ইয়াবাসহ আটক করা হয় অপর এক মাদক কারবারিকে।

তার আগে বাবুগঞ্জের রহমতপুর এলাকা থেকে দুই কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারিকে আটক করে ডিবির এসআই মহিউদ্দিন আহমেদ (পিপিএম)।

এদিকে মাদক ব্যবসায়ীরা বর্তমান করোনা সংকটের মধ্যে নিজেদের মাদক ব্যবসা নিরাপদ বলে মনে করলেও ডিবি পুলিশের একের পর এক আটক এবং উদ্ধার অভিযান তার উল্টোটা জানান দিচ্ছে। পর পর কয়েকটি অভিযানের কারণে মাদক ব্যবসায়ীরা কৌশল পরিবর্তন শুরু করেছে বলে সূত্র জানিয়েছে। তবে কোন কৌশলই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর মাদক বিরোধী অভিযানকে রোধ করতে পারবে না, এমনটাই দাবি সংশ্লিষ্টদের।