ঝুঁকি সত্যেও ঘরমুখো মানুষের ঢল

বিএসএল ডেস্ক Wednesday, March 25th, 2020 9:26 pm

বিশ্বজুড়ে মহামারী আকার ধারণ করেছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। দেশের আইইডিসিআরের সর্বশেষ তথ্য মতে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন কোন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত না হলেও নতুন একজনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচজনে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকবিলায় দেশের সব ধরনের সরকারি-বেসরকারি অফিসগুলোতে টানা দশদিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। ভাইরাসটির সংক্রমণ রোধে নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন পদক্ষেপ।

যার মধ্যে সাধারণ ছুটির সময়টিতে নাগরিকদের জনসমাগম এড়িয়ে যার যার ঘরে থাকতে বলা হলেও শহর ছেড়ে গ্রামের বাড়ির দিকে যাত্রা করেছেন বিপুলসংখ্যক মানুষ। এতে করে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি আরও বেড়ে গিয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশ সরকার সব ধরনের জনসমাগমের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও তা মানছেন না অনেকেই। বরং দীর্ঘ ছুটি পেয়ে অনেকেই গ্রামের দিকে ছুটে চলেছেন ঝুঁকি নিয়ে। নিজেদের জীবনের পাশাপাশি চরম ঝুঁকিতে ফেলছেন পরিবারের সদস্যদেরও।

সরেজমিনে বুধবার (২৫ মার্চ) দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে দেখা যায় ঘরমুখো মানুষের ব্যাপক ভিড়। করোনা দূর্যোগ রয়, মনে হচ্ছে সবাই কোন উৎসবে বাড়ি ফিরছেন। ঢাকা থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে মানুষের মিছিল মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাট দিয়ে পদ্মা নদী পার হচ্ছে। লঞ্চ সার্ভিস বন্ধ থাকলেও ফেরিতেই নদী পার হচ্ছেন তারা।

বরগুনার আমতলীর বাসিন্দা রিপন হাওলাদার বলেন, আমরা জানি করোনাভাইরাস ছোঁয়াচে রোগ। তারপরও বেশ কয়েক দিন ছুটি পাওয়ায় ঝুঁকি নিয়েই বাড়ি ফিরছি। আল্লাহর ওপর ভরসা রেখেই বের হয়েছি।

এদিকে রাজবাড়ী পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যেখানে বাংলার ১৭ কোটি মানুষ রয়েছেন ঝুঁকিতে, সেখানে কিভাবে সম্ভব এভাবে বাড়ি ফেরা? ঘরমুখো এই মানুষেরা আমাদের অনেক বড় ক্ষতি করে ফেলবে।

সবাইকে সব ধরনের জনসমাগম এড়িয়ে চলার জন্য এবং আরো অধিক সচেতন হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা এখনি থামুন। আপনাদের সন্তানদের জন্য, আপনাদের পরিবারের জন্য হলেও অন্তত থামুন।