ঈদের সকালেই কুরবানী হলো রাকিব ও হাসনা বেগম !

নিজস্ব প্রতিবেদক সোমবার, আগস্ট ১২, ২০১৯ ৩:১২ অপরাহ্ণ

ঈদ-উল-আযহা’ অর্থাৎ কোরবানি বা উৎসর্গ করা। ইসলামের বিধান মতে পশু কুরবানীর মধ্যে দিয়ে উদযাপন করা হয় দিনটি। কিন্তু কোরবানি হয়ে গেল দুটি তাজা প্রাণ। ঈদের দিন সকালে স্বামী ও স্থানীয় সন্ত্রাসীরা নির্দয়ভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে তাদের দু’জনকে।

আজ সোমবার সকালে রাঙ্গামাটির কালাপাকুজ্যা ইউনিয়নের ইসলামপুর ও নারায়নগঞ্জের ফতুল্লায় নির্মম এই ঘটনা দুটি ঘটেছে। এর মধ্যে রাঙ্গামাটির ঘটনায় স্ত্রী’র ঘাতক নিজাম (৫০) কে আটক করে স্থানীয় লংদু থানা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে স্থানীয়রা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পরিবারিক সূত্র জানিয়েছে, ঈদের দিন সকালে পারিবারিক কলহের জের ধরে নিজাম তার স্ত্রী হাসনা বেগমকে নিজ ঘরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। এসময় প্রতিবেশীরা নিজামকে ধরে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। তাছাড়া মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে।

অপরদিকে নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থানাধীন পাগলা রেলস্টেশন এলাকায় রাকিব (২০) নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। সোমবার ভোর রাতে এই ঘটনায় নিহত রাকিবের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে পুলিশ।

রাকিব শরীয়তপুর জেলার নয়াপাড়ার মড়িয়ার বাসিন্দা নওশেদ বেপারীর একমাত্র পুত্র। সে থাকতো নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থানা এলাকায়। রাকিবের সাথে থাকা তার বন্ধু ও প্রত্যক্ষদর্শী আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, সকালে পাগলা বাজার থেকে কেনাকাটা করে রিকশায় রাকিবের সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। পথিমধ্যে রেলস্টেশন এলাকায় স্থানীয় মানিকসহ ৪-৫ জন রিকশার গতিরোধ করে।

তিনি বলেন, দুর্বৃরা আমাকে (আব্দুল্লাহ) রিকশা থেকে নামিয়ে চোর বলে ধাওয়া করে। কিছুক্ষণ পরে ফিরে এসে বন্ধু রাকিবের রক্তাক্ত মৃতদেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করেন।