যাত্রীসেবার মান বাড়াতে নতুন রূপে এ্যাডভেঞ্চার-১

নিজস্ব প্রতিবেদক মঙ্গলবার, মে ২৮, ২০১৯ ৯:১৮ অপরাহ্ণ

যাত্রীদের সেবার মান বাড়াতে নতুন রূপে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে নিজাম শিপিং লাইন্সের এমভি এ্যাডভেঞ্চার-১। আগামী ৩০ মে বৃহস্পতিবার বরিশাল থেকে ঢাকা উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবে বিলাসবহুল এ লঞ্চটি। ২০১৭ সালে এমভি এ্যাডভেঞ্চার-১ লঞ্চটি সার্ভিসে যুক্ত করার মাধ্যমে নৌ-সেক্টরে আগমন ঘটে নিজাম শিপিং লাইন্স’র।

ঝালকাঠি এবং পটুয়াখালী রুটে কয়েকটি ঈদ স্পেশাল ট্রিপ দেবার পর বরিশাল রুটেই স্থায়ীভাবে সার্ভিসে যুক্ত হয় লঞ্চটি। শুরু থেকে গতি এবং সার্ভিসের কারনে দুর্দান্ত ফর্মে ছিল বরিশাল রুটের অন্যতম সেরা ফ্রন্ট ডিজাইন সম্বলিত লঞ্চটি। কিন্তু সময় গড়ার সাথে এবং চতুর্থ তলায় মাস্টারব্রীজ সম্বলিত নৌযান বেড়ে যাওয়ার কারনে ঠিক যাত্রী আকর্ষণে যথেষ্ট ছিলনা লঞ্চের দুর্দান্ত গতি এবং সার্ভিস।

এমন অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেন লঞ্চটির সম্মুখভাগে কিছুটা পরিবর্তনসহ আরও নতুন কিছু সংযোজন করে আবারও বরিশালে সার্ভিসে আনতে। সেই লক্ষ্যে মাসখানেকেরও বেশী সময় সার্ভিসে নেই এ্যাডভেঞ্চার-১। নিজাম শিপিং লাইন্স’র দপদপিয়া সংলগ্ন নিজস্ব ডকইয়ার্ডে লঞ্চটি নিয়ে প্রয়োজনীয় কিছু সংস্কার এবং নতুনত্ব সংযোজন করে ঈদের আগেই সার্ভিসে ফিরছে লঞ্চটি।

নিজাম শিপিং লাইন্সের পরিচালক নাসির মৃধা জানান, পূর্বের ফ্রন্টডেক ডিজাইনকে একেবারেই পরিবর্তন করে নিয়মিত গোলাকার ডিজাইনের করেই তৈরি করা হয়েছে এ্যাডভেঞ্চার-১’র ফ্রন্টডেক। তাতে প্রথম ও দ্বিতীয় তলার কার্ভ শেপের কোন উপস্থিতি থাকছেনা। একই সাথে ফ্রন্টডেক এসেছে লঞ্চটির আরও কিছুটা সামনে এমনটি মনে হবে সামনে দাঁড়িয়ে।

ফ্রন্টডেক বর্ধিতকরণের সাথে মাস্টারব্রীজও আনা হয়েছে কিছুটা সামনে এবং ডিজাইনের পরিবর্তন করেই। কার্যত তৃতীয় তলায় মাস্টারব্রীজ থাকলেও ডিজাইনটি করা হয়েছে তৃতীয় তলা থেকে কিছুটা উপরে রেখেই। তাতে সামনে দাঁড়িয়ে অনেকটা চতুর্থ তলায় মাস্টারব্রীজ সংযুক্ত করা হয়েছে বলেই মনে হবে। সম্মুখভাগের সিঁড়ির ব্যবস্থা পরিবর্তন করা হয়েছে একেবারেই। এক্ষেত্রে পূর্বের সিঁড়ি কেটে ফেলে এ্যাডভেঞ্চার-৯’র মত সম্মুখভাগ থেকে একটি সিঁড়ি তৈরি করে দ্বিতীয় তলায় ফ্রন্টডেকের দুইপাশে শেষ করা হয়েছে।

তৃতীয় তলায় মাস্টারব্রীজ কিছুটা সামনের আনার কারনে এখানে তৈরি হয়েছে বাড়তি স্পেস। সেখানেই যুক্ত করা হয়েছে এসি সুবিধাসহ আরামদায়ক চেয়ার। আসন বিন্যাসের এই পরিবর্তন ব্যতীত আর কোন পরিবর্তন আসছেনা। পূর্বের ন্যায় সকল সিঙ্গেল/ডবল কেবিন, ফ্যামিলি কেবিন, সেমি-ভিআইপি ও ভিআইপি কেবিন থাকছে হুবহু আগের মতই।

লঞ্চ কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্যমতে, এ্যাডভেঞ্চার-১’র দুটি রিকন্ডিশন ডাইহাটসু ইঞ্জিন পরিবর্তন করে প্রায় ১৪০০ অশ্ব ক্ষমতা সম্পন্ন রিকন্ডিশন ইয়ানমার ইঞ্জিন যুক্ত করা হয়ে প্রোপালশন মেইন ইঞ্জিন হিসেবে। নতুন এই প্রোপালশন সিস্টেমের কনফিগারেশন নিয়ে বিশদ আলোচনা ইনশাআল্লাহ আসছে খুব শীঘ্রই।

এখানে একটি ব্যাপারে লঞ্চ কর্তৃপক্ষের অবস্থান খুবই স্পষ্ট, এবারের পরিবর্তনে হয়তো এ্যাডভেঞ্চার – ১’র অনেক নান্দনিকতাই হারাতে হয়েছে, তবে ব্যবসায়িক স্বার্থে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া ভিন্ন কোন পথ ছিলনা। নতুন রূপে, নতুন গতি আর সার্ভিসে মান আগের মতই অটুট রেখে আসছে ২৫ রমজানের কাছাকাছি সময়ে ফিরতে যাচ্ছে বরিশাল রুটের গতির ফর্মে থাকা এ্যাডভেঞ্চার-১।

এ ব্যাপারে নিজাম শিপিং লাইন্স’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিজাম উদ্দিন বলেন, আমরা সব সময় যাত্রীদের সেবার দিকটি সর্বোচ্চ বিবেচনা করে থাকি। এর ধারাবাহিকতা রক্ষায় এ্যাডভেঞ্চার-১ লঞ্চটি পুনরায় নতুন রূপে যাত্রীদের সেবার মান বৃদ্ধিতে অন্যন্য ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।