পটুয়াখালীতে ক্লিনিকে ভাংচুর-লুটপাট, মামলা নিচ্ছে না পুলিশ !

নিজস্ব প্রতিবেদক সোমবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯

পটুয়াখালীতে প্রাইভেট সেন্টার হসপিটাল নামের একটি ক্লিনিকে হামলা, ভাংচুর, ছিনতাই ও চিকিৎসক লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ আতিক নামের এক ব্যক্তিকে নামধারী এবং অজ্ঞাতনামা ৫০ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা দায়েরের জন্য একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।

রোববার (০৮ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে ক্লিনিকের ব্যবস্থাপক নুরুল ইসলাম রনি বাদী হয়ে এজাহার দাখিল করেন। একই সাথে ক্লিনিকে সন্ত্রাসী তা-বের একাধিক ভিডিও দাখিল করেন। তবে সোমবার বিকালে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানা পুলিশ রহস্যজনক কারণে অভিযোগটি এজাহার হিসেবে গ্রহন করেনি।

বাদী জানিয়েছেন গত শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাত সোয়া ১০টার দিকে ৪/৫ জন যুবক ক্লিনিকে এসে একজন মুমূর্ষ রোগীকে চিকিৎসা দেয়ার জন্য দায়িত্বরত চিকিৎসক মশিউর রহমানকে বাহিরে নিয়ে যেতে যায়। কিন্তু চিকিৎসক তার কক্ষে অনেক রোগীর ভিড় থাকায় পড়ে যাওয়ার কথা বলেন। এ নিয়ে ওই যুবকদের সাথে চিকিৎসকের কথা কাটাকাটি হয়।

ঘটনার পরে ওই যুবকরা চলে যায় এবং ৩০ মিনিটের মাথায় পুনরায় ৪০/৫০ জনের একটি বাহিনী নিয়ে তারা ক্লিনিকে এসে নিরাপত্তা প্রহরী শাহিন ও সুপারভাইজার নাসিরকে মারধর করে। পাশাপাশি তারা ক্লিনিকের কয়েকটি কক্ষের আসবাবপত্র ভাংচুর ও ডাক্তার মশিউর রহমানের কাছে থাকা ক্লিনিকের দেড় লাখ টাকা ছিনতাই করে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। তাছাড়া সন্ত্রাসী হামলার প্রায় ২৪ ঘন্টা পরে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ তাদের সাড়ে চার লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি উল্লেখ করে রোববার (০৮ সেপ্টেম্বর) রাতে পটুয়াখালী সদর থানায় একটি এজাহার দাখিল করেন।

পটুয়াখালী সদর থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বিএসএল নিউজকে বলেন, ‘এহাজার পেয়েছি। তবে সেটা এখনো রেকর্ড হয়নি। কারণ অভিযোগের সত্যতা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। আমাদের পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন সহ প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলছেন। তদন্তে সত্যতা পেলে তার পরেই এই বিষয়ে মামলা গ্রহন করা হবে।