ধর্ষণ মামলা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করায় বাদীর কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক বুধবার, অক্টোবর ৯, ২০১৯

হয়রানি করতে মিথ্যা ধর্ষন মামলা দিয়ে ফাঁসানো চেষ্টার অভিযোগে করা মামলায় বাদী লাকি বেগমকে ৫ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। এছাড়াও ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের দন্ড দেয়া হয়েছে।

বুধবার এ দন্ড দেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু শামীম আজাদ। রায় ঘোষনার সময় লাকি বেগম পলাতক ছিলো। সে বাকেরগঞ্জ বলইকাঠি গ্রামের বাসিন্দা রফিক সিকদারের স্ত্রী।

আদালত সূত্রে জানায়, একই গ্রামের আমিনুল সিকদারের সাথে লাকির স্বামী রফিক সিকদারের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো। ওই বিরোধের জের ধরে আমিনুল সিকদারকে ফাঁসাতে মিথ্যা ধর্ষন মামলা দেয় লাকি বেগম। ওই মামলায় অভিযোগ প্রমানিত না হলে আমিনুলকে অব্যহতি দেয় বিচারক।

এর ধারাবাহিকতায় ২০১৩ সালের ২১ মে আমিনুল সিকদার বাদী হয়ে লাকি বেগম সহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে মানহানি মামলা করে। ওই মামলায় ২০১৪ সালের ১৩ অক্টোবর লাকির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। মামলায় ৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহন শেষে বিচারক ওই দন্ড দেন।