আবরার হত্যার প্রতিবাদে ইশা ছাত্র আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক মঙ্গলবার, অক্টোবর ৮, ২০১৯

বাংলাদেশের সংবিধানের ৩৯নং অনুচ্ছেদ যেখানে সাধারন মানুষের চিন্তা, বিবেক ও বাক-স্বাধীনতা দিয়েছে, সেখানে বুয়েট এর মতো মেধাবী শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা করা সম্পূর্ণভাবে সংবিধানবিরোধী, মানবতাবিরোধী। বিশ্বজিৎ সহ পরবর্তী হত্যাকান্ডে সুষ্ঠু বিচারকার্য সম্পাদিত না হওয়ায় সন্ত্রাসীরা একের পর এক হত্যাকান্ড ঘটানোর সাহস পেয়েছে।

পূর্ববর্তী ঘটনাগুলোর ন্যায় এ ঘটনাটিও মাটি চাপা পড়ে গেলে ভবিষ্যতে আরো কত নৃশংসতার স্বাক্ষী হতে হয় তা আমাদের জানা নেই। দেশব্যাপী এসব ঘটনা বন্ধ করতে হলে আবরার হত্যায় জড়িতদের সকলকে আইনের আওতায় এনে ফাঁসি কার্যকর করতে হবে।

মঙ্গলবার ৮ অক্টোবর বিকেল ৪টায় বরিশাল নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হলের সম্মূখে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন, বরিশাল জেলা ও মহানগর শাখার যৌথ উদ্যোগে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে ফাঁসি কার্যকর করার দাবিতে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তাগণ উপরোক্ত কথা বলেন।

বক্তাগণ বলেন, দেশব্যাপী নৃশংস হত্যাকান্ডে জড়িতরা দ্রুত ক্ষমতাসীন নেতা ও প্রশাসনের সহযোগীতায় ধরাছোয়ার বাইরে থেকে যায়, ফলে এধরনের নৃশংসতা এখন নিত্তনৈমিত্তিক ঘটনায় রূপ নিয়েছে। নীতিহীন সমাজব্যবস্থাও অনেকাংশে এসব ঘটনার জন্য দায়ী বলে অভিযোগ করেন নেতৃবৃন্দ।

মহানগর সভাপতি এস এম ছাব্বির রহমান এর সভাপতিত্বে ও জেলা সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বরিশাল জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মাদ কাওছারুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বরিশাল মহানগর প্রশিক্ষন সম্পাদক মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন (টিটু),

ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন বরিশাল মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আবু আব্দুল্লাহ মাহমুদী, ইসলামী যুব আন্দোলন বরিশাল জেলা সভাপতি এইচ এম সানাউল্লাহ, মহানগর সভাপতি মাওলানা মুহাম্মাদ আরিফুর রহমান, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি মাহবুব হোসেন, বরিশাল জেলা সভাপতি মুহাম্মাদ আরমান হোসেন রিয়াদ, সরকারি বিএম কলেজ সভাপতি মুহাম্মাদ রেজাউল করীম প্রমূখ।